বাংলার অনেক অধ্যয়ের ঠিকানা দক্ষিন দিনাজপুর জেলার নানা প্রাচীন ইতিহাস

১৫ই ফেব্রয়ারী, কৃষ্ণপদ মন্ডলঃ প্রাচীন বাংলার অনেক অজানা ইতিহাস আজও মাটির নিচে চাপা বর্তমান দক্ষিন দিনাজপুর জেলায়। ১৯৩৮ সাল কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়, ও পরে ২০০৭ সালে ভারতের প্রত্ত্বতাত্বিক বিভাগ দক্ষিন দিনাজপুরের বানগড় খনন কাজ চালিয়েছে, কিন্ত আজও অসম্পূর্ন এই জেলার নানা স্থানে ছড়িয়ে থাকা অনেক গুরুত্বপূর্ন ইতিহাস। আর তাই আমাদের এই চোখ বিভাগে আমরা তুলে ধরবো প্রাচীন দিনাজপুরের নানা নিদর্শন, যা আজকে কিছু অংশ ভারত ও কিছু অংশ বাংলাদেশে অবস্থিত। অনেকে মনে করে কি বা আছে দক্ষিন দিনাজপুর জেলার মাটিতে, এক কোনে পরে থাকা এই জেলায় আবার পর্যটন? কিন্ত এটা হয়তো সত্যি একদিন প্রমানিত হবে বাংলার ইতিহাস মানেই দক্ষিন দিনাজপুর। আমাদের আজকের প্রতিবেদনে আমরা তুলে ধরবো জেলার সামগ্রীক কিছু ঐতিহাসিক নিদর্শনের কথা। এই জেলা বর্তমানে ক্ষুদ্র হলেও আজও এই মাটিতে লুকিয়ে আছে বাংলার অাদি কাল। জেলা নানা স্থানে ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে নানা ঐতিহাসিক নিদর্শন, যা দেখলে অবাক হতে হয় কেন এতকাল বিকশিত হয়নি। এই জেলার বিভিন্ন স্থানে ও জল হাওয়াতেও মিশে রয়েছে নানা আধ্যাত্মিক ও পৌরাণিক গল্প কথা, বাণ রাজার দেশ কিম্বা বিরাট রাজার দেশ আবার ঊষা হরণ কাহিনী কিম্বা কীচকগড় বা কীচককুন্ড, এমনকি এই মাটিতেই লুকিয়ে আছে ভগবান শ্রীকৃষ্ণের স্পর্শ নাতি অনিরুদ্ধকে ঘিরে। এইখানেই লুকিয়ে রয়েছে পুরাতাত্বিক ও ঐতিহাসিক নিদর্শন যেমন প্রাক মৌর্য যুগ, মৌর্য যুগ, শুঙ্গযুগ, গুপ্তযুগ, পালযুগ, সেনযুগ ও সুলতানি যুগের নানা নিদর্শন। এইখানেই আছে জৈন গুরু জম্বুস্বামীর সমাধি থেকে বখতিয়ার খিলজির সমাধি এমনকি এই মাটিতেই আছে ভারতের প্রথম বাংলা ছাপাখানার শ্রষ্টা স্যার উইলিয়াম কেরির ছেলে পিটার কেরির সমাধি আবার এইখানেই জন্ম সন্ধাকর নন্দী থেকে মহাকবি কালিদাসের, আবার এইখানেই ছিলো জগদ্দল মহাবিহার থেকে দেবকোট মহাবিহার, এইখানেই শিক্ষা লাভ করে বিশ্ব পারি দিয়েছিলেন অতীশ দিপঙ্কর।

এইখানেই অবস্থিত রামপালের রাজধানী থেকে কৈবত্যরাজ ভীমের রাজধানী, বখতিয়ার খিলজির রাজধানী, জন টমাসের নীলকুঠি, উইলিয়াম কেরীর নীলকুঠি ও প্রমানিত সত্য শ্রীরামপুর নয়, এই জেলায় হলো বাংলা মুদ্রণ যন্ত্রের প্রথম ব্যবহারিক স্থান। এইখানেই রয়েছে স্মৃতি বিজড়িত নানা বড় বড় দীঘি- যেমন তপন দীঘি, ধলদীঘি, কালদীঘি, মহীপাল দীঘি, প্রান সাগর দীঘি, আলতা দীঘি, মালিয়ান দীঘি, গড় দীঘি, কাকা দীঘি, খরিফা দীঘি, ধূ্মসাদীঘি প্রভৃতি, এছাড়াও রয়েছে বেশ রোমাঞ্চকর বন। তবে বলা যেতে পারে এই জেলার প্রাচীন সভ্যতার দুইটি গুরুত্বপূ্র্ন এলাকা হলো গঙ্গারামপুরের বাণগড় ও হরিরামপুরের বৈরাট্টা। যার মধ্যেই আছে প্রাচীন ও সমৃদ্ধশালি নগর সভ্যতা কোটিবর্ষ। (চলবে)

1 thought on “বাংলার অনেক অধ্যয়ের ঠিকানা দক্ষিন দিনাজপুর জেলার নানা প্রাচীন ইতিহাস

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *